ডার্বি সিগারেট কোম্পানি কোথায়-বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম

 আজকে আমরা আলোচনা করব বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম সম্পর্কে। আপনারা যদি বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম-ডার্বি সিগারেট কোম্পানি কোথায় না জেনে থাকেন তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য। আপনি যদি এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলে আপনি বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানী নাম ও ডার্বি সিগারেট কোম্পানি কোথায় জানতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নেই ডার্বি সিগারেট কোম্পানি কোথায় এবং বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম।

বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম
বর্তমানে বাংলাদেশে বিভিন্ন প্রকার ব্যান্ডের সিগারেটের অনুমোদন রয়েছে আজ জানবো বাংলাদেশ সিগারেট কোম্পানি গুলোর নাম কি এবং ডার্বি সিগারেট কোম্পানি কোথায় । তাই কথা না বাড়িয়ে চলুন ঝটপট আমরা জেনে নেই বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।

বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম

 প্রিয় পাঠক আপনি কি জানেন বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম? যদি না জেনে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি পড়ুন। বর্তমানে বাংলাদেশের চারটি বড় বড় সিগারেট কোম্পানী রয়েছে নিচে এসব বিষয়ে আলোচনা করা হলো।
  • আকিজ গ্রুপ
  • বেক্সিমকো গ্রুপ
  • ইস্পাহানি গ্রুপ
  • নাসির গ্রুপ
আকিজ গ্রুপঃ আকিজ গ্রুপ হচ্ছে বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম। একটি প্রাচীন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান।এটি 1940 সালে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। আকিজ গ্রুপ প্রতিষ্ঠানটি টেক্সটাইল তামাক সিরামিক পেন্টিং ঔষধ ভোগাদ্রব্যতে মিলিত রয়েছে। আকিজ গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতার নাম শেখ আকিজ উদ্দিন। আকিজ গ্রুপ কোম্পানির প্রথমে নাম ছিল পাট শিল্প পরবর্তীতে পরিবর্তন করে সেটাকে আকিজ গ্রুপ অপ কোম্পানি নাম দেওয়া হয়।

বেক্সিমকো গ্রুপঃ বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম বা সবচেয়ে সুনামধন্য প্রতিষ্ঠান হচ্ছে বেক্সিমকো গ্রুপ কোম্পানি। বেক্সিমকো কোম্পানিটি প্রতিষ্ঠিত হয় 1970 সালে। বেক্সিমকো গ্রুপ অফ কোম্পানিটি স্টক এক্সচেঞ্জ মূলধনের সর্ববৃহৎ অংশ একটি। বেক্সিমকো গ্রুপ অফ কোম্পানি বর্তমানে ৫৪টি দেশে রপ্তানি করে।

ইস্পাহানি গ্রুপঃস্থানীয় একটি বহুমুখী ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। ইস্পাহানি গ্রুপ অব কোম্পানির সদর দপ্তর চট্টগ্রাম অবস্থিত। গ্রুপ অফ কোম্পানি 1920 সালে প্রতিষ্ঠিত করা হয়। এটি অনেক পুরনো একটি সুপ্রাচীন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের সিগারেট কোম্পানির নাম ইস্পাহানি গ্রুপ অফ কোম্পানি টেক্সটাইল, পাট,চা,বিভিন্ন বাণিজ্যিক সামগ্রী খাতে নিয়োজিত করে থাকে। মির্জা আহমেদ ইস্পাহানি গ্রুপ অফ কোম্পানি প্রতিষ্ঠাতা।
নাসির গ্রুপঃ নাসির গ্রুপ অফ কোম্পানি এটি সর্ববৃহৎ শিল্প সামগ্রী প্রতিষ্ঠান। নাসির গ্রুপ অফ কোম্পানি 1977 সালে প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছিল। নাসির গ্রুপ ও কোম্পানি তামাকশিল্প , গ্লাসশিল্প , মুদ্রণশিল্প , প্যাকেজিংশিল্প প্রভৃতি ব্যবসায়ী বিভিন্ন খাতে নিয়োজিত রয়েছে। বাংলাদেশের প্রাচীন ব্যবসায়ী একটি প্রতিষ্ঠান নাসিক গ্রুপ অফ কোম্পানি।

বাংলাদেশের সিগারেট নাম

বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রকার ব্যান্ড সিগারেটের অনুমোদন রয়েছে। এর মাঝে বিভিন্ন প্রকার ব্যান্ড বিভিন্ন রকম দাম নির্ধারণ করেছে। যেসব সিগারেট বাংলাদেশ অনুমোদন পেয়েছে সেসব সিগারেটের নাম গুলো হচ্ছে
  • গোল্ড লিফ সিগারেট
  • বেনসন লাইট সিগারেট
  • স্টার সিগারেট
  • রয়েলস সিগারেট
  • ডার্বি সিগারেট
  • নেভি সিগারেট
  • টপ টেন সিগারেট 
এছাড়াও বিভিন্ন প্রকার ব্র্যান্ডের সিগারেট অনুমোদন বাংলাদেশ রয়েছে। উপরোক্ত সিগারেট গুলার মধ্যে সর্বোচ্চ দাম বেনসনের বড় প্যাকেট ৩২০ টাকা এবং সর্বনিম্ন ব্র্যান্ড টপ টেন বড় প্যাকেট ৪০ টাকা। বাংলাদেশের প্রায় ৬ লাখ মানুষ প্রতিদিন সিগারেট সেবন করছে।

সিগারেট নাম ও দাম

  • গোল্ড লিফ সিগারেট
  • বেনসন লাইট সিগারেট
  • স্টার সিগারেট
  • রয়েলস সিগারেট
  • ডার্বি সিগারেট
  • নেভি সিগারেট
বেনসন লাইট সিগারেটঃ বেনসন সিগারেটের ক্যাটাগরি রয়েছে। যেমন বেনসন লাইট বেনসন সুইচ তবে ক্যাটাগরি আলাদা হলেও দাম একই বেনসন লাইট সিগারেট বড় প্যাকেটের মূল্য বাংলাদেশের টাকায় ৩২০ টাকা এবং ছোট প্যাকেটের মূল্য ১৬০ টাকা। এটি বাংলাদেশ প্রায় সব জায়গায় বাজারে রয়েছে।

গোল্ডলিফ সিগারেটের দামঃ গোল্ডলিফ সিগারেটের কয়েকটি ক্যাটাগরি রয়েছে গোল্ডলিফ সুইস এবং গোল্ডলিলাইট। ক্যাটাগরি ভিন্ন হলোও দাম উভয়ের একই বড় প্যাকেট বাংলাদেশের টাকায় ২৪০ টাকা এবং ছোট প্যাকেটের মূল্য ১২০ টাকা। গোল্ডলিফের বড় প্যাকেটে ২০টি সিগারেট এবং ছোট প্যাকেটে ১০ টি সিগারেট রয়েছে। এটি বাংলাদেশ প্রায় সব জায়গাতেই পাওয়া যায়।

স্টার সিগারেটঃ স্টার বাংলাদেশের অনেক পুরাতন একটি সিগারেট। বর্তমানে স্টার সিগারেটের দুটি ক্যাটাগরির রয়েছে একটি স্টার সুইচ এবং স্টার লাইট। বাংলাদেশে স্টারের বড় এক প্যাকেট সিগারেটের মূল্য ১৪০ টাকা এবং ছোট এক প্যাকেটের মূল্য ৭০ টাকা। এটি বাংলাদেশে প্রায় সকল জায়গা পাওয়া যায়।

রয়েলস সিগারেটঃ বর্তমানে বাংলাদেশের রয়্যালসের দুই একটি রয়েলস এলএস অপরটি রয়েলস নেক্সট, ক্যাটাগরি আলাদা হলে উভয়ের দাম একই বড় প্যাকেট ১২০ টাকা এবং ছোট প্যাকেট ৬০ টাকা। এটি বাংলাদেশের প্রায় সকল জায়গায় পাওয়া যায়।

ডার্বি সিগারেটঃ ডার্বি সিগারেট এর আগের নাম ছিল বিস্টল পরবর্তীতে সেটা পরিবর্তিত হয়ে ডার্বি নামে রুপান্তর হয়েছে। ডার্বি সিগারেট অনেক প্রাচীন সিগারেটের মধ্যে একটি। এটির কোনো ক্যাটাগরি নেই বড় এক প্যাকেট সিগারেটের মূল্য ১০০ টাকা এবং ছোট প্যাকেট ৫০ টাকা
নেভি সিগারেটঃ নেভি সিগারেট একটি বাংলাদেশ অনেক প্রচীন সিগারেটের মধ্যে একটি। নেভি সিগারেটের স্বাদ ঠান্ডা। এটির কেনো ক্যাটাগরি নেই। নেভি সিগারেটের বড় এক প্যাকেট সিগারেটের মূল্য ১৪০ টাকা এবং ছোট এক প্যাকেট এর মূল্য ৭০ টাকা।

সিগারেট কোম্পানির ডিলার

যেসব কোম্পানি বাহিরের দেশ হতে আমদনিকৃত পূন্য নিজের দেশে এনে সেখান থেকে নিজের দেশের চাহিদা মিটায় সেসব কোম্পানিকে ডিলার বলা হয়। আমাদের বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি সিগারেটের কোম্পানি ডিলার রয়েছে। এসব কোম্পানি বাহিরের দেশ হতে সিগারেট আমদনি করে তাদের কাছ থেকে পুরো দেশের চাহিদা পূরণ করে। এসব সিগারেট কোম্পানির ডিলার গ্রুপ হচ্ছে 
  • নাসির গ্রুপ কোম্পানি 
  • আকিজ গ্রুপ কোম্পানি 
  • বসুন্ধরা গ্রুপ কোম্পানি 
  • ইস্পাহানি গ্রুপ কোম্পানি 
এসব বাদেও আরে কয়েকটি সিগারেটের কোম্পানি ডিলার রয়েছে বাংলাদেশের। এসব কোম্পানি অনেক প্রচীন অপর দিকে এসব কোম্পানি কেবল তামাক ছাড়াও বিভিন্ন পূণ্য আমদানি করে থাকে। দেশের চাহিদা পূরণে অবদান রাখে। 

ডারবি সিগারেট কোম্পানি কোথায়

ডারবি একটি খুব পরিচিত একটি সিগারেট। ডারবি সিগারেটের মূল্য তুলনা মুলকভাবে অনেকটায় কম। ডারবি সিগারেট এর পূর্বের নাম ছিল বিস্টল পরবর্তীতে নাম পরিবর্তন করে ডারবি রাখা হয়। এখন কথা হচ্ছে ডারবি সিগারেটের কোম্পানি কেথায় অবস্থিত এবং কোথা হতে আমাদের দেশে আসতেছে। ডারবি সিগারেট একটি বিদেশি পূণ্য যা আমাদের দেশের কিছু কমার্সশিয়াল কোম্পানি গুলো আমদানি করার মাধ্যমে দেশের তামাকের চাহিদা পূরণ করে।

সিগারেট নাম ও দাম ২০২৩

আমাদের পূর্বের সিগারেটের দামের সাথে এখনকার বর্তমান দামের কিছু পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়। সম্প্রতি তথ্য মতে আমরা সকলেই জেনেছি যে প্রায় সকল জিনিস পত্রের দাম উর্ধুমখী তাই তামাকের ক্ষেত্রেও কোনো বিকল্প নেই তাই আগের দামের তুলনায় বর্তমান মূল্যে পরিবর্তন এসেছে। আবার পরবর্তী সময়ে দাম বাড়তেও পাড়ে আবার কমতেও পাড়ে এসব নির্ভর করে গ্রহকের চাহিদার উপর। সুতরাং আজ আমরা বর্তমান সময়ের সিগারেটের মূল্য সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো। 
 
গোল্ড লিফ সিগারেট ২০২৩ঃ বাংলাদেশে গোল্ড লিফের বর্তমান মূল্য বড় এক প্যাকেট ২৪০ টাকা এবং ছোট এক প্যাকেটের মূল্য ১২০ টাকা।
বেনসন লাইট সিগারেট২০২৩ঃ বাংলাদেশ ব্যানসানের বর্তমান মূল্য বড় প্যাকেটের দাম ৩৪০ টাকা এবং ছোট প্যাকেটের দাম ১৭০ টাকা।
স্টার সিগারেটঃ বাংলাদেশে স্টার সিগারেটের বর্তমান মূল্য বড় প্যাকেট ১৪০ টাকা এবং ছোট এক প্যাকেটের মূল্য ৭০ টাকা। 
রয়েলস সিগারেট ২০২৩ঃ বাংলাদেশের রয়েলস সিগারেটের বর্তমান মূল্য বড় এক প্যাকেটের দাম ১২০ টাকা এবং ছোট এক প্যাকেটের দাম ৬০ টাকা 
ডার্বি সিগারেট ২০২৩ঃ বাংলাদেশ ডার্বি সিগারেটের বর্তমান মূল্য বড় এক প্যাকেট ১০০ টাকার এবং ছোট এক প্যাকেটের মূল্য ৫০ টাকা। বড় প্যাকেটে ২০টি করে শলকা এবং ছোট প্যাকেটে ১০টি করে শলকা রয়েছে।

উপসংহার 

পরিশেষে বলা যায় যে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রকার ব্র্যান্ডের সিগারেটের অনুমোদন রয়েছে। এজন্যই বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ভিন্ন ভিন্ন দাম নির্ধারিত রয়েছে। বাংলাদেশের প্রতিদিন প্রায় ছয় লাখের মতো মানুষ সিগারেট গ্রহণ করে থাকে। তবে বর্তমান সিগারেটের মূল্য হিসেবে  পরবর্তী সময়ে আরো সিগারেটের দাম বাড়বে বলে জানা গেছে।


পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url