চোখে ঝাপসা দেখার ড্রপ-চোখের এলার্জির ড্রপ এর নাম

আসসালামু আলাইকুম, প্রিয় পাঠক আজকের পোস্টের মাধ্যমে চোখে ঝাপসা দেখার  ড্রপ  কি এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনাদের মধ্যে যারা চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি এর সম্পর্কে জানেন না আজকের পোস্টের মাধ্যমে সম্পূর্ণ ধারণা দেয়ার চেষ্টা করব। তাহলে আপনিও জানতে পারবেন চোখে ঝাপসা দেখার  ড্রপ  কি বা নাম।

চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি
চলুন দেরি না করে জেনে নেই চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি এ সম্পর্কে বিস্তারিত।

চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি

প্রিয় পাঠক আপনি নিশ্চয়ই জানতে চাচ্ছেন চোখে ঝাপসা দেখার  ড্রপ  কি? যদি না জেনে থাকেন চোখে ঝাপসা দেখার  ড্রপ সম্পর্কে তাহলে আজকের এই পর্বটি আপনার জন্য। আজকের এই পর্ব মনোযোগ সহকারে পড়লে আপনি জানতে পারবেন চোখে ঝাপসা দেখার ড্রপের নাম।

আইন ব্লিক জাস্ট মেয়ার আলস থাউজেন্ড ভোর্টে এটি একটি জার্মান ভাষা এবং এই ভাষাটির অর্থ হল এক পলকে হাজারো শব্দের চেয়ে বেশি কথা বলে কিন্তু এক চোখেই যখন দুনিয়ার সবকিছু আর সচ্ছভাবে দেখতে পাই না তখন আমাদের সাধারণ জীবনে আর দুর্ভোগের শেষ থাকে না। সেজন্য চোখের সব সময় যত্ন নিতে হবে। সাধারণত চোখের দৃষ্টি ঝাপসা হলে আমরা ডাক্তারকে দেখে থাকি।

আরো পড়ুনঃচোখের ড্রপের নাম ও বাচ্চাদের ড্রপ

তিনি চোখের পাওয়ার মেপে চশমা তারপর গোটা জীবন শেষ চশমা ঝুলিয়ে রাখতে হয় নাকে এবং কানে। এর থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য সাধারণত আমরা লেন্স ব্যবহার করে থাকি। এই হলো চোখের সমস্যার সহজ সমাধান। তবে বিজ্ঞান কখনো থেমে থাকে না। সাধারণ নিয়মে চলতে থাকে এবং এগিয়ে থাকে এবং কাউকে তোয়াক্কা করে না। অসম্ভবকে সম্ভব করাই হচ্ছে বিজ্ঞানের কাজ।

সম্প্রতি আমেরিকার ইউএস ফুড এন্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এমন একটি ই ড্রপ বা চোখের ড্রপ ব্যবহারের উপদেশ দিয়েছে যা চশমা ছাড়াই দৃষ্টি স্পষ্ট করে তোলে। এই ড্রপটির নাম ভিউটি। চশমার পরিহিত মানুষের কাছে একটি আশীর্বাদ এর মত বলে মন্তব্য করছেন বিজ্ঞানীরা। এক্ষেত্রে কাছের জিনিস দেখায় যাদের সমস্যা তাদের দৃষ্টি এই আই ড্রপ ব্যবহার করে এই স্পষ্ট হয়ে যাবে এই দাবি হচ্ছে নির্মাতা সংস্থার।

চোখের এলার্জির ড্রপ এর নাম

প্রিয় পাঠক এভাবে আমরা আলোচনা করব চোখের এলার্জির ড্রপের নাম সম্পর্কে। ড্রপের নাম কি তাহলে আজকের এই পর্ব আপনাদের জন্য অনেক উপকারে আসবে। তাই আজকের এই পর্বটি খুব মনোযোগ সহকারে পড়ুন তাহলে জানতে পারবেন চোখের এলার্জি ড্রপের নাম কি। তার আগে একটি কথা বলে রাখি চোখ মানব শরীরের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ যেকোনো ধরনের ড্রপ ব্যবহার করার আগে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন। নিচে কিছু ড্রপের নাম দেয়া হলো যেগুলো চোখের এলার্জি দূর করতে সাহায্য করে।

Dexagent T

Lovicin

Crolom (Cromolyn Ophthalmic)

Alcarex Eye Drop

Engatt 0.5% Eye Drops

Zonafresh Eye Drop

ভিউটি ড্রপ এর ব্যবহার

চলতি বছরেই ভিউটি ড্রপ এফডিএ এর ছাড়ার অনুমতি পেয়েছে। নির্মাতা সংস্থার দাবি ভিউটি ড্রপ চোখে দেওয়ার মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যেই কাজ শুরু হয়ে যাবে এবং আরও আশ্চর্যজনকভাবে প্রতিটা ড্রপ ব্যবহারের পরে ছয় থেকে দশ ঘন্টা দৃষ্টি স্পষ্ট থাকবে বলে জানিয়েছেন নির্মাতা সংস্থা। এই আই ড্রপের ক্লিনিক্যাল টায়ালে অংশগ্রহণ করেছেন প্রায় ৭৫০ জন মানুষ। এই মানুষগুলির কাছে জিনিস দেখতে সমস্যা হয়ে থাকে। সামনের কিছু তারা অস্পষ্ট দেখতে পেত এবং এই সমস্যার নাম প্রেসবায়োপিয়া

চোখে ঝাপসা দেখার ঔষধ

চিকিৎসকের কাছে চোখের অসুখ নিয়ে যারা যায় তাদের মধ্যে অনেকের ই একটি কমন সমস্যা চোখে ঝাপসা দেখার। চোখে ঝাপসা দেখার পেছনে বিভিন্ন ধরনের কারণ থাকতে পারে। সমস্যা গুলোর কারণে তাদেরকে নিয়মিত চশমা পড়তে হয়। যদি চশমা ভেঙ্গে যায় তাহলে তাদের আবার নতুন চশমা কিনতে হয়। বয়স যাদের ৪০ এর বেশি হয়ে গেছে বই পড়তে তাদের অনেক সমস্যা হয়। অনেকে আসেন যারা সূর্যের সুতা ঢোকাতে পারেন না এমন নিয়ে। আবার অনেকে পত্রিকা পড়তে পারছেন না বলে মাছের কাঁটা বাছাই করতে পারছেন না এমন ধরনের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে ডাক্তারের কাছে যেতে হয়।

চিকিৎসকরা এ ধরনের রোগীদের ও খুব ভালো চিকিৎসা দিয়ে থাকে। চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। জীবাণু নাশক চোখের ড্রপ দিয়ে জীবাণু দ্বারা সৃষ্ট একটি সংক্রমনের চিকিৎসা করতে ব্যবহার করতে হয়। চোখের জীবাণুনাশক মলম হিসেবেও পাওয়া যায়। একটি ভাইরাস দ্বারা সৃষ্ট চোখের জালা বা লাল চোখ ভালো করতে জীবাণুন আসুক চোখের ড্রপ ব্যবহার করা যায়। এন্টিহিস্টামিন সহ চোখের ড্রপ এলার্জির কারণে সৃষ্টি পানি পানি, লাল এবং চুলকানো চোখ নিরাময় করে থাকে। চুলকানো চোখে স্বস্তি আনতে ঠান্ডা ভাব সাহায্য করতে পারে এবং এতে কোন খরচ হয় না।

চোখে ঝাপসা দেখার হোমিও চিকিৎসা

চোখের এলার্জি বা এলার্জিক কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হল এক ধরনের চোখের ব্যাধি যা হলে চোখের কঞ্জাঙ্কটিভাতে প্রদাহ হয়। চোখের এলার্জি মূলত ব্যাকটেরিয়া সংক্রমিত কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস এর থেকে কিছুটা আলাদা হয়ে থাকে। চোখের এলার্জি সাধারণত গরমকালে হয়। হোমিও প্যাথি এর কিছু চিকিৎসা রয়েছে। এই এলার্জির লক্ষণ দেখা দিলে যে যে ওষুধ দেওয়া যায় বা দেওয়া হয় নিম্নে আলোচনা করা হলো।

এপিস মেল
এপিস মেল তীব্র ও যন্ত্রণাদায়ক এলার্জি গুলোর চিকিৎসা করে থাকে। চোখের চারপাশ ফুলে যায়, চোখের পাতাও ফুলে থাকে। চোখ থেকে সব সময় পানি বেরিয়ে আসে।

আরো পড়ুনঃচোখের দৃষ্টি বৃদ্ধি করার ঔষধ

ইউফ্রেসিয়া
চোখ থেকে অনেক সময় এসিডিক কিছু বা ঝামেলা নির্গত হয় যার ফলে চোখ জ্বালাপোড়া করতে থাকে। এবং চোখ থেকে ক্রমাগত পানি বের হতে থাকে। এরকম সমস্যা দেখা গেলে ইউফ্রেসিয়া নামক হোমিও প্যাথি ওষুধটি ব্যবহার করা হয়।

আর্জেন্টাম নেট্রিকাম
চোখ দিয়ে অনেক বেশি পুজ বের হলে আর্জেন্টাম নেট্রিকাম হোমিওপ্যাথি ওষুধটি ব্যবহার করা হয়। কি সমস্যা গুলোর ক্ষেত্রে রোগীর ফটো ফোবিয়া হয়ে থাকে। চোখের ভেতর ছোট ছোট টুকরো হয়ে ভেঙ্গে যাচ্ছে সেটা মনে হয়। এতে কঞ্জাঙ্কটিভা ক্রমশরস্ফীত হতে থাকে।

মাথা ব্যাথা ও চোখে ঝাপসা দেখার কারণ কি

বিজ্ঞানীদের মতে চোখের ঝাপসা দেখার কারণে পিছনে লুকিয়ে থাকে অনেক বড় একটি কারণ। যেমন শরীরে ডাইবেটিকস থাকলে কিংবা কোন চোখে ছানি পড়লেও মানুষের চোখে ঝাপসা দেখতে শুরু হয়। এছাড়াও গ্লুকোমার কারণে চোখে ঝাপসা দেখার সমস্যাটা সৃষ্টি হতে থাকে। গ্লুকোমা হলো যখন কোন চোখ থেকে তরল প্রবাহিত হয় না তখন এমন অবস্থা হয়ে থাকে। আর এই অবস্থা তখন হয় যখন চোখের স্বাভাবিক পানি প্রবাহের পরিমাণ কমতে থাকে। এ সমস্যায় চোখের উপর চাপ পড়ে যা চোখের স্নায়ু ও রক্তকণিকা ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকে। এতেই চোখে সমস্যা হতে পারে যে কোনো ব্যক্তির যে কোনো সময়। 

শরীরের মধ্যে জটিল কোন রোগ না থাকলে চোখের। এই ঝাপসা দেখা বা দৃষ্টিকে বাড়ানোর জন্য কিছু উপায় রয়েছে বলে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ হাসপাতালের গবেষণা মনে করেন বলে জানান এবং তারা বলেন ওষুধ খাওয়াবা চশমা পরার পাশাপাশি আপনি যদি ইয়োগা, প্রণয়ন আর চোখের কিছু নির্দিষ্ট ব্যায়াম নিয়মিত করতে থাকেন তবে এ সমস্যা অনেকটাই কমিয়ে আনা সম্ভব হয়ে ওঠে। 

এছাড়া আপনি যদি চোখে ঝাপসা দূর করার কিছু উপায় অথবা চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি জানতে চান তাহলে নিম্ন কিছু আলোচনা করা হলোঃ

  • মোবাইল, কম্পিউটার টিভির ক্ষতি কর তেজস্ক্রিয় রশ্নি থেকে চোখে দূরে রাখতে হবে।
  • ভিটামিন এ জাতীয় খাবার যেমন মিষ্টি পেঁপে, কাঁঠাল, কুমড়া, কালো কচু শাক, বৈশাখ, মিষ্টি আলু,  শাকসবজি এবং ছোট মাছ খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।
  • সব সময় চোখে পরিষ্কার ও পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।
  • ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড, বিটা ক্যারোটিন ও লিউটিন দৃশ্য শক্তি বাড়াবে।

চোখের পাওয়ার বৃদ্ধি করার উপায়

আমাদের শরীরের স্পর্শকাতর ও মূল্যবান একটি অঙ্গ হচ্ছে চোখ। তাই সে চোখের যত্ন নেওয়া আমাদের সবার জন্যই খুবই জরুরী। কখনো নিজেদের অজান্তে আবার কখনো কিছু অভ্যাসের কারণে চোখের জ্যোতি বা দৃষ্টিভঙ্গি কমিয়ে ফেলি। বর্তমান সময়ে অধিকাংশ মানুষ ইলেকট্রনিক গেজেট নিয়ে দিনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়ে থাকেন। ইলেকট্রনিক গেজেট চোখের যদি কমানোর অন্যতম কারণ। বিশেষ করে রাত্রে আলো নিভে চোখের কাছে মোবাইল রেখে তাতে সিনেমা দেখা বা ঘন্টার পর ঘন্টা ফোন ব্যবহার করা কেড়ে নিচ্ছে আমাদের চোখের দৃষ্টি শক্তি। 

ধূমপানে আসক্তি শুধুমাত্র হার্টকে নয় আমাদের চোখেও ক্ষতিগ্রস্ত করে থাকে। সিগারেটের ধোঁয়া ক্যাটারাক্ট তো অবশ্যই। বয়সজনিত ম্যাকুলার ভিজেনারেশনকে ত্বরান্বিত করে তুলে। দৃষ্টিশক্তি কম হওয়ার অন্যতম কারণ হিসেবে এই ধূমপানকেই চিহ্নিত করেন গবেষকরা এবং চিকিৎসকরা। আমরা চোখের জ্যোতি বাড়ানোর ক্ষেত্রে ভিটামিন এ জাতীয় খাবার বিশেষ করে খুব গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন এ জাতীয় খাবার যেমন মিষ্টি পেঁপে, কাঁঠাল, কুমড়া, কালো কচু শাক, বৈশাখ, মিষ্টি আলু,  শাকসবজি এবং ছোট মাছ ইত্যাদি খাবার অভ্যাস গড়ে তুললেই সমস্যার জন্য সকল সমস্যার সমাধান আসবে।

চোখের দৃষ্টি বৃদ্ধি করার উপায় দোয়া

আল্লাহ তা'আলা মানুষকে পরম যত্নে সৃষ্টি করেছেন। তার মানব দেহের প্রতিটি অঙ্গ প্রত্যঙ্গই অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ফলের শারীরিক সুস্থতা, দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকা ও শোভন শক্তির প্রখরতা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এগুলো ভালো রাখতে সতর্কতার পাশাপাশি আল্লাহর কাছে বেশি বেশি করে দোয়া চাইতে হবে।

চোখের দোয়াঃ আল্লাহুম্মা আ-ফিনি ফি বাদানি, আল্লাহুম্মা আ-ফিনি ফি সাম-ই আল্লাহুম্মা আ-ফিনি বাসারী, লা ইলাহা ইল্লা আনতা।

অর্থঃ হে আল্লাহ! আমার দেহকে সুস্থ রাখুন। হে আল্লাহ! আমাকে সুস্থ রাখুন আমার শ্রবণ ইন্দ্রেয়ে। হে আল্লাহ! আমাকে সুস্থ রাখুন আমার দৃষ্টি শক্তিতে। আপনি ছাড়া কোন উপাস্য নেই।

আরো পড়ুনঃচোখে ঝাপসা দূর করার ওষুধ

আব্দুর রহমান ইবনে আবু বক্কর রাযিআল্লাহু তা'আলা আনহু থেকে বর্ণিত, আমি আমার পিতাকে বললাম, হে আব্বাজান, আমি আপনাকে প্রতিদিন ভোরে এবং সন্ধ্যায় তিনবার বলতে শুনি -হে আল্লাহ! আমার দেহকে সুস্থ রাখুন। হে আল্লাহ! আমাকে সুস্থ রাখুন আমার শ্রবণ ইন্দ্রেয়ে। হে আল্লাহ! আমাকে সুস্থ রাখুন আমার দৃষ্টি শক্তিতে। 

আপনি ছাড়া কোন উপাস্য নেই। তিনি বলেন আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে এ বাক্য গুলো দ্বারা দোয়া করতে শুনেছি। আমি সেজন্যই তার ঐ নিয়ম অনুসরণ করতে ভালোবাসি। অতএব আমাদের খেয়াল রাখতে হবে আমাদের দেহের সমস্যাগুলোর জন্য ওষুধ সেবনের সাথে সাথে আল্লাহ তায়ালার কাছে দোয়া প্রার্থনা করতে হবে।

শেষ কথাঃ চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি

আশা করি আজকের পোষ্টের মাধ্যমে চোখে ঝাপসা দেখার ওষুধ বা ড্রপ কি তার সম্পর্কে যা বিস্তারিত আলোচনা করলাম তা অবশ্যই বুঝতে পেরেছেন। চোখে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে এবং আল্লাহ তায়ালার কাছে দোয়া প্রার্থনা করতে হবে। আমাদের পোস্ট টি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে বেশি বেশি শেয়ার করে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিন। ধন্যবাদ


পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url