চিরতরে মেছতা দূর করার উপায় - মেছতা দূর করার সিরাম

প্রিয় পাঠক আপনি যদি চিরতরে মেছতা দূর করার উপায়। সম্পর্কে জানতে চান তবে এই পর্বটি আপনার জন্য। আজকের এই পর্বের মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন চিরতরে কিভাবে মেছতা দূর করা যায়। চিরতরে মেছতা দূর করতে এবং দূর করার উপায় সম্পর্কে জানতে এই পর্বটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তাহলে চলুন আজকের এই পর্বের মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক চিরতরে মেছতা দূর করার উপায়।
চিরতরে মেছতা দূর করার উপায়
আপনি কি মেছতা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন? আপনি যদি মেছতা নিয়ে দুশ্চিন্তাই ভোগে থাকেন তবে এই পর্বটি আপনার জন্য। আজকের এই পর্বের মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন কিভাবে মেছতা দূর করা যায়। তাহলে চলুন আজকের এই পর্বে জেনে নেওয়া যাক চিরতরে মেছতা দূর করার উপায়।

মেছতা দূর করার ক্রিম

আপনি যদি মেছতা দূর করার ক্রিম এর নাম সম্পর্কে জানতে চান অথবা কোন ক্রিমটি মেছতা দূর করার জন্য সবথেকে ভালো জানতে চান তবে এই পর্বটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তাহলে চলুন আজকের এই পর্বের মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক মেছতা দূর করার ক্রিম সম্পর্কে। মেলাজ বা মেলাসমা গ্রিক শব্দের অর্থ হল কালো। 

সাধারণত মুখের ত্বকে মেলাজমার উপস্থিতির জন্য ত্বকের কালছে ধরনের আবরণ দেখা যায় যা সাধারণভাবে মেস্তা নামে পরিচিত। ছেলে কিংবা মেয়ে যে কোন বয়সে মেছতার সমস্যায় হতে পারে।

সরাসরি সূর্যের আলোতে মেলাজমার উৎপত্তি বেশি হয়। তাই সরাসরি সূর্যালোক থেকে দূরে থাকুন কিংবা সূর্যের আলোয় যাওয়ার আগে বিভিন্ন রকম প্রটেকশন ব্যবহার করতে পারেন। সাধারণত ত্বকের যে সকল স্থানে সূর্যের আলো বেশি পৌঁছায় সে সকল স্থানে মেলাজ দেখা দেয়। বিশেষ করে নাকেও গালে। চলুন এখন জেনে নেওয়া যাক নেতা দূর করার ক্রিমের নাম।

Betavet-N ক্রিম

মুখে মেছতার দাগ দূর করতে Betavet-N ক্রিমটি অত্যন্ত কার্যকরী একটি ঔষধ। যাদের অতিরিক্ত মেছতা রয়েছে তারা রাতে ঘুমানোর পূর্বে এই ক্রিম টি ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাবেন। 16 বছরের উপরে ছেলে-মেয়ে উভয়েই এই ক্রিমটি ব্যবহার করতে পারবেন।

Hydroo 2% ক্রিম

মেছতা দূর করার জন্য আরো একটি কার্যকর ওষুধ হল Hydroo 2% ক্রিম। স্কিন ও চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ যেকোনো ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ঔষধের দোকান থেকে ক্রিমটি কিনে করে ব্যবহার করতে পারেন। পাঁচ থেকে সাত দিনের মধ্যে ভালো একটি ফলাফল আশা করা যায়।

Mela care Cream  

মেছতার দূর করতে বাজারে সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রিম হল Mela care Cream , এটি ইন্ডিয়ান প্রোডাক্ট হয় বাংলাদেশের যেকোনো মার্কেটে খুব সহজেই পাওয়া যায় এর দাম প্রায় ২৫০-৩০০ এর মধ্যে। এই ক্রিমটিও অন্যান্য ক্রিমের মতোই রাতে ব্যবহার করতে হয়।

মেছতা দূর করার ঔষধ

আপনি যদি মেছতা দূর করার ঔষধ এর নাম জানতে চান তবে এই পর্বটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। আজকের এই পর্বের মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন কিভাবে মেছতা দূর করা যায় বা মেছতা দূর করার জন্য কোন ওষুধটি সব থেকে ভালো। 

তাহলে চলুন আজকের এই পর্বের মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক মেছতা দূর করার ঔষধ এর নাম। নিচে মেছতা দূর করার কিছু ওষুধের নাম দেওয়া হলোঃ
  1. Betavet-N ক্রিম
  2. Hydroquinone Cream
  3. Melanyc 
  4. Hydroo 2% ক্রিম
  5. Mela care Cream

চিরতরে মেছতা দূর করার উপায়

আপনি যদি চিরতরে মেছতা দূর করার উপায় সম্পর্কে জানতে চান তবে এই পর্বটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। চলুন আজকের এই পর্বের মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক চিরতরে মেছতা দূর করার উপায়। মেছতা দূর করার উপায় সম্পর্কে জানার আগে আপনাকে অবশ্যই আপনার ত্বকের মেছতার ধরন অনুযায়ী জানতে হবে। 

ত্বকের ধরন অনুযায়ী মেছতার ধরনের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন রকম ঔষধ প্রয়োগ করতে হবে। এক্ষেত্রে প্রথমেই স্কিন ও চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ক্রিম বা ঔষধ গ্রহণ করতে হবে।

বাজারে প্রচলিত অনেক ধরনের মেছতার ক্রিম পাওয়া যায়। কিন্তু এগুলো আপনার ত্বকের জন্য পারফেক্ট কিনা তা জানা অত্যন্ত জরুরী। তাই অন্য কারো পরামর্শ অনুযায়ী বাজারের প্রচলিত কেমিক্যাল মিশ্রিত কোন ঔষধ বা ক্রিম ব্যবহার না করে সরাসরি ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে চিকিৎসা গ্রহণ করা উত্তম। মেস্তা চিরতরে দূর করার উপায় সম্পর্কে জেনে নিই -

এপি ডার্মাল হাইপার প্রিভেনশন সুপার ফেসিয়াল পদ্ধতিঃ

এপি ডার্মাল হাইপার প্রিভেনশন সুপার ফেসিয়াল হল ত্বকের উপরিভাগে মেছতা। এই ধরনের মেছতা থেকে চিকিৎসা গ্রহণের মাধ্যমে খুব সহজেই মুক্তি পাওয়া যায়। এ ধরনের মেছতার ক্ষেত্রে যে ধরনের চিকিৎসা গুলো প্রয়োগ করা হয় এগুলো হল-

হাইড্রোকুইনন

রাতে ঘুমানোর পূর্বে পরিস্কার মুখে হাইড্রোকুইনন ব্যবহারের ফলে মেছতা থেকে খুব সহজেই মুক্তি পাওয়া যায়। 10 থেকে 15 দিনের মধ্যে মেছতা  অনেক অংশে কমে আসবে। মেছতার জন্য দায়ী ট্রাইরোসিন এনজাইম এর বৃদ্ধি যা হাইড্রোকুইনন ব্যবহারের ফলে বাধা সৃষ্টি করে। 

মেছতা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বিভিন্ন রকমের ব্লিচিং এজেন্ট ব্যবহার করলে এর বিধি কিছুটা কমানো যায়। কারণ বিলিথিং এজেন্ট গুলোর মধ্যে এসকরবিক এসিড ও ফলিক এসিড থাকে।

কেমিকেল পিল

মেছতা  থেকে মুক্তি পাওয়ার অন্যতম একটি উপায় হল কেমিক্যাল পিল ইউজ। আপনার যদি মেছতার খুবই সমস্যা হয়ে থাকে তবে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করতে পারেন।

ক্লিগমেজ

ক্লিগমেজ ফর্মুলা মেছতার জন্য বেশ উপকারী একটি ফর্মুলা। এটি এক ধরনের স্টেরয়েড যা হাইড্রোকুইননের সাথে মিশ্রিত করে ব্যবহার করা হয়। এই ফেসপ্যাকটি নিয়মিত ব্যবহারের ফলে মেছতা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তবে এটি ব্যবহারে যদি মেছতা তবে এটি ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।

সানব্লক

সূর্যের অতিবেগুনি রশ্নিতে মেছতা আরো বেশি দেখা দেয়। তাই রোদে যাওয়ার পূর্বে অবশ্যই সানব্লক ব্যবহার করবেন। এতে করে মেছতা হওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে কমে যাবে। সানব্লক সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মিকে আমাদের ত্বকের ক্ষতি করতে বাধা সৃষ্টি করে। তাই ঘরের বাহিরে গেলে অবশ্যই সানব্লক ব্যবহার করবেন।

পুরুষের মেছতা দূর করার ক্রিম

আপনি নিশ্চয়ই পুরুষের মেছতা দূর করার ক্রিম এর নাম জানতে চাচ্ছেন? হ্যাঁ আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। আজকের এই পর্বের মাধ্যমে চলুন জেনে নেওয়া যাক পুরুষের মেছতা দূর করার ক্রিম এর নাম। মেছতা দূর করার জন্য বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে। 

এর ওর কথা  শুনে আজেবাজে ক্রিম ব্যবহার না করে রেজিস্টাড চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ত্বক পরীক্ষার মাধ্যমে মুখের জন্য মানানসই ঔষধ ব্যবহারের ফলেই একমাত্র মেছতা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে ডাক্তার যে ধরনের ঔষধ ব্যবহার করতে পারেন এগুলো হল -
  1. Hydroo 2% ক্রিম
  2. Mela care Cream 
  3. Betavet-N ক্রিম
  4. Hydroquinone Cream
  5. Melanyc 
ওপরের ক্রিম গুলি ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবহার করবেন।

ছেলেদের মেছতা দূর করার উপায়

ছেলেদের মেছতা দূর করার উপায় সম্পর্কে জানতে এই গল্পটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। চলুন আজকের এই পর্বের মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক ছেলেদের মেছতা দূর করার উপায়। যদিও মেছতা প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। তাও কিছু নিয়ম মেনে চলার মাধ্যমে মেস্তা থেকে অনেক অংশে রক্ষা পাওয়া যায়।

রোদে যাওয়ার পূর্বে সানস্ক্রিম ব্যবহার করা।রোদে যাওয়ার পূর্বে সানগ্লাস বা ছাতার ব্যবহার। এছাড়াও মেছতা থেকে মুক্তির জন্য বিভিন্ন ধরনের ঔষধ ও ক্রিম বাজারে প্রচলিত রয়েছে। এছাড়াও ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বনের মাধ্যমে মেছতা দূর করা যায়।

মেছতা দূর করার ঘরোয়া উপায়

আপনি কি মেছতা দূর করার ঘরোয়া উপায় জানতে চাচ্ছেন? আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। চলুন আজকের এই পর্বের মাধ্যমে জানা যাক মেছতা দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত।মেছতাথেকে মুক্তি পাওয়ার বেশ কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি রয়েছে। সহজলভ্য এবং উপকারী এই পদ্ধতিগুলো নিয়ে আলোচনা করা হলো-

  1. লেবুর রস-লেবুর রসে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্ট মেছতা দূর করার জন্য অত্যন্ত উপকারী। এটি সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মিকে প্রতিহত করে। রাতে ঘুমানোর আগে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানে লেবুর রস ব্যবহারের মাধ্যমে এ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  2. হলুদ-রূপচর্চায় হলুদের ব্যবহার প্রাচীনকাল থেকেই হয়ে আসছে। মেছতাতেও এর বিকল্প নয়। হলুদে বিদ্যমান কুরকুমিন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট মেছতা সৃষ্ট মৃত কোষ ও এর দাগ থেকে রক্ষা করে। হলুদের সঙ্গে দুধ মিশিয়ে একটি পেজ তৈরি করে 15 মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখলে আরো ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। পেকটি ব্যবহারের পর সাধারণ পানি দিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে নিন।
  3. ভিনেগার-ভিনেগার এ বিদ্যমান অ্যাসিটিক অ্যাসিড টকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।একই সাথে ত্বকে বিভিন্ন রকমের ব্যাকটেরিয়ার বা ইনফেকশনের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে এবং ত্বক থেকে বিভিন্ন ধরনের ময়লা পরিষ্কার করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। নিয়মিত ত্বকে ভিনেগার ব্যবহারের ফলে আপনার ত্বক আরো আকর্ষণীয় সুন্দর হয়ে উঠবে।
  4. পেঁয়াজের রস-কিছুটা পেঁয়াজের রসের সঙ্গে ভিনেগার মিশিয়ে  মেছতা এর ওপর ব্যবহার করলে কিছুটা ফলাফল পাওয়া যায়।
  5. পেঁপে-পেপেতে বিদ্যমান পাপায়া এনজাইম মেছতার ওপর কার্যকর ভূমিকা পালন করে। স্কিনের মৃত কোষ দূর করতে এবং ত্বককে মসৃণ করে তুলতে সাহায্য করে। স্কিনকে যেকোনো ধরনের স্কিন প্রবলেম থেকে দূর করতে নিয়মিত পেঁপে ব্যবহার করতে পারেন।

মেছতা দূর করার সিরাম

আপনি নিশ্চয়ই মেছতা দূর করার সিরাম সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন? হ্যাঁ আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। আজকের এই পর্বের মাধ্যমে আমরা আলোচনা করব মেছতা দূর করার জন্য কোন সিরাম সব থেকে ভাল সেই সম্পর্কে। মেছতা দূর করার জন্য সিরাম সম্পর্কে জানতে এই পর্বটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তাহলে চলুন আজকের এই পর্বের মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক মেছতা দূর করার সিরাম এর নাম। নিচে মেছতা দূর করার দুইটি সিরাম এর নাম দেওয়া হলঃ
  1. White rice serum
  2. Melasma breakdown serum

২টি উপায়ে মেছতার দাগ চিরতরে দূর করুন  

মেছতার দাগ চিরতরে দূর করুন সহজ ২টি উপায়ে। উপায় দুইটি জানতে হলে এই পর্বটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। ত্বকের বিভিন্ন ধরনের সমস্যার মধ্যে অন্যতম একটি প্রধান সমস্যা হলো মেছতা। দীর্ঘদিন ধরে মেছতা হয়ে থাকলে এর থেকে মুক্তি পাওয়া খুবই কঠিন। এতে মূলত ত্বকের ওপর ময়লা জমিয়ে ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট করে ফেলে।

 বিশেষ করে ফর্সা মানুষ অর্থাৎ যাদের ত্বকে মেলানিনের পরিমাণ অনেক বেশি তাদের এই সমস্যা বেশি হয়ে থাকে। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি, হরমোনাল সমস্যা কিংবা থাইরয়েডের সমস্যার কারণে ও ত্বকে মেছতা দেখা দিতে পারে। তবে মাত্র দুটি উপায়ে খুব সহজে চিরতরে মেছতার দাগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।-

হলুদ ও দুধের ব্যবহার

রূপচর্চায় হলুদের ব্যবহার প্রাচীনকাল থেকেই হয়ে আসছে। মেছতাতেও এর বিকল্প নয়। হলুদে বিদ্যমান কুরকুমিন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট মেছতা সৃষ্ট মৃত কোষ ও এর দাগ থেকে রক্ষা করে। হলুদের সঙ্গে দুধ মিশিয়ে একটি পেজ তৈরি করে 15 মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখলে আরো ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। 

পেকটি ব্যবহারের পর সাধারণ পানি দিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। এতে কিছুটা উপকার হবে বলে আশা করা যায়।

লেবুর রস

লেবুর রসে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্ট মেছতা দূর করার জন্য অত্যন্ত উপকারী। এটি সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মিকে প্রতিহত করে। রাতে ঘুমানোর আগে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানে লেবুর রস ব্যবহারের মাধ্যমে এ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

এছাড়াও একটি পরিষ্কার কটন বলে সামান্য কিছু পরিমাণ লেবুর রস নিয়ে মুখে মাসাজ করুন। কিছুক্ষণ মাসাজ করার পর হালকা গরম পানিতে মুখ ধুয়ে নিন। দিনে অন্তত দুইবার এই পদ্ধতি ব্যবহার করুন। আশা করা যায় সপ্তাহ তিনেকের মধ্যেই ভালো ফলাফল পেয়ে যাবেন।

শেষ কথা

উপরোক্ত আলোচনা সাপেক্ষে এতক্ষণে নিশ্চয় চিরতরে মেছতা দূর করার উপায় সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আপনার যদি এই পর্বটি সম্পর্কে কোন মতামত থেকে থাকে তবে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন এবং আজকের এই পর্বটি যদি আপনার কোন উপকারে লাগে তাহলে অবশ্যই আপনি আপনার বন্ধু বান্ধবের সাথে শেয়ার করে দিবেন।
পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url